আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

৫ মিনিটের এক ফোন কলে বাদ পড়ায় ভেঙে পড়েছেন ব্রড

অ্যাশেজে নিয়মিত খেলার সুযোগ না পেলেও যখনই সুযোগ পেয়েছেন নিজের সর্বোচ্চটুকু দিয়েছেন। সিরিজের শেষ দুই টেস্টে নিয়েছিলেন ১১ উইকেট। দীর্ঘ একটা সময় ধরে ইংল্যান্ডের হয়ে গতি আক্রমণের নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন জেমস অ্যান্ডারসনের সঙ্গে। নিজের টেস্ট ক্যারিয়ারে নিয়েছেন ৫৩৭ উইকেট। নিজের যোগ্যতাবলে ইতিহাসে জায়গা করে নিলেও এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজের দলে বাদ পড়েছেন স্টুয়ার্ট ব্রড।

ইংল্যান্ডের অ্যাশেজ বিপর্যয়ের সিরিজেও ব্রড ছিলেন ইংল্যান্ড দলের সফল বোলারদের একজন। ২৬.৩০ গড়ে নিয়েছেন ১৩ উইকেট। আর হঠাৎ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে জায়গা না পাওয়ায় হতাশ টেস্ট ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি এই বোলার।

আসছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে বাদ পড়েছেন স্টুয়ার্ট ব্রড এবং জেমস অ্যান্ডারসন। ইংল্যান্ড ক্রিকেটের এই দুই শক্তিকে বাদ দেওয়ায় চলছে সমালোচনা। কেউ কেউ এটাকে ‘ভূমিকম্প’ হিসেবেই আখ্যা দিচ্ছেন। অ্যান্ডারসন এখনো বিষয়টি নিয়ে কথা বললেও বলেছেন ব্রড। ইংল্যান্ড দল থেকে বাদ পড়ে আবেগাপ্লুত তিনি।

বাদ পড়ার বিষয়টি এত দ্রুত ঘটে যাবে এমনটা আশা করেন নি ব্রড। তবে বাদ পড়ার বিষয়টি এখনো নিশ্চিত নন তিনি। তার বাদ পড়ার বিষয়ে নির্বাচককের মধ্যে যোগাযোগের ঘাটতিতে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন এই সফল বোলার।

ব্রড বলেন, ‘অ্যান্ড্রু স্ট্রাউসের সঙ্গে মাত্র পাঁচ মিনিট ফোনে কথা হয়েছে। জানতে পারলাম, আমাকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের জন্য বিবেচনা করা হচ্ছে না। বিষয়টার সঙ্গে মানিয়ে নিতে বেশ কষ্টই হচ্ছে। এটাই স্বাভাবিক। যখন মাত্র পাঁচ মিনিটের ফোনালাপে আপনি জানতে পারবেন যে আপনি দলে নেই।’

বাদ পড়ার এই সংবাদটি প্রভাব ফেলেছে ব্রডের ব্যক্তিগত জীবনেও। ডেইলি মেইলের এক কলামে ব্রড বলেছেন, ‘আমি বিষয়টি ফুলিয়ে–ফাঁপিয়ে তুলতে চাই না, তবে এটা সত্যি যে বিষয়টি আমার ঘুমের ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে। আমি আমার সঙ্গী মলিকে এক সকালে ঘুম থেকে উঠে বলেছি, আমার সারা শরীর ব্যথা করছে। সে অবশ্য বলেছে, এটা মানসিক ক্লান্তি, আর কিছু নয়। আমি নিজেকে অনেক বড় কিছু মনে করি না, সোনার মতো দামি কিছুও ভাবি না। তবে সবকিছু ঠিক আছে, এমনটা মনে করা ভুল।’

তার খারাপ লাগা নিয়ে তিনি আরো বলেছেন, ‘আমি অ্যাশেজে শেষ দুই টেস্টে ১১ উইকেট নিয়েছি। আমার বোলিং টেস্ট মানে অনেক দিন ধরেই আছে। সবশেষ আট বছরে আমি বিশ্বমানের—এটা সবাই স্বীকার করবেন। আমি আমার বাদ পড়াটা মেনে নিতাম, যদি আমার পারফরম্যান্সে কোনো ঘাটতি থাকত। কিন্তু আমার মতো কেউ না থাকতেও দল থেকে বাদ পড়াটা সম্পূর্ণ ভিন্ন জিনিস। আমার কাছে যেটি খারাপ লাগছে, সেটি হচ্ছে ইংলিশ ক্রিকেটের নতুন পরিকল্পনায় আমাকে রাখা হয়নি।’

তবে ব্রডের বাদ পড়ার বিষয়ে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক অ্যান্ড্রু স্ট্রাউস অবশ্য বলছেন, ‘ব্রড, অ্যান্ডারসন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বাদ পড়েছেন, তার মানে এই নয় যে তাঁদের ক্রিকেট ক্যারিয়ার শেষ হয়ে গেছে। তিনি অবশ্য এই দুই সেরা ফাস্ট বোলারের বাদ পড়াটাকে ‘বিশ্রাম’–এর মোড়ক দেওয়ার চেষ্টা করছেন। তবে ব্রডকে আঘাত করেছে একটা জিনিসই—ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল নিয়ে নতুন পরিকল্পনায় আপাতত তিনি নেই’।

তবে বাদ পড়ার সঠিক কারন তিনি জানতে পারেননি জানিয়ে ব্রড বলেন, ‘তারা (নির্বাচকেরা) যখন বিদেশের মাটিতে জয়ের জন্য তাৎক্ষণিক পরিকল্পনার অংশে আমাকে রাখে না, সেটা আরও বেশি বিচলিত করে। বিষয়টার ব্যাখ্যা আমাকে খুব সংক্ষেপে দেওয়া হয়েছিল। ৮ মার্চ অ্যান্টিগায় ইংল্যান্ডের সেরা দলে জায়গা পাওয়ার যোগ্যতা আমার আছে বলে বিশ্বাস করি। এ জন্য বাদ পড়ার ব্যাপারটা নেওয়া কঠিন আমার জন্য।’

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট