আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

ক্রিকেট

হতাশার হার দিয়ে বিশ্বকাপ থেকে বাংলাদেশের বিদায়

নেদারল্যান্ডসের মিরাকলে পাওয়া সুযোগ কাজে লাগাতে পারল না বাংলাদেশ। প্রথবারের মতো সেমি ফাইনালের স্বপ্ন পূরণের ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে হেরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিল টাইগাররা।

হতাশার হার দিয়ে বিশ্বকাপ থেকে বাংলাদেশের বিদায়

হতাশার হার দিয়ে বিশ্বকাপ থেকে বাংলাদেশের বিদায়। ছবিঃ সংগৃহীত

আগে ব্যাট করে পাকিস্তানকে মাত্র ১২৮ রানের লক্ষ্য দেয় বাংলাদেশ। জবাবে ১১ বল বাকি হাতে রেখেই ৫ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় পাকিস্তান। এই জয়ের মধ্যমে সেমি ফাইনাল নিশ্চিত করলো দলটি।

শান মাসুদের অপরাজিত ১৪ বলে ২৪ রানের আগে ৫৭ রানের উদ্বোধনী জুটিতে বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান জয়ের ভিত গড়ে দেন। পাকিস্তানের পক্ষে ইনিংস সেরা ৩২ রান করেন রিজওয়ান, মোহাম্মদ হারিসের ব্যাট থেকে আসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩১ রান।

অ্যাডিলেড ওভালে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে সূচনাটা ভালোই ছিল বাংলাদেশের। বিশেষ করে বেশ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে ব্যাটিং শুরু করেন লিটন দাস। নাজমুল হোসেন শান্তকে সঙ্গে নিয়ে ২১ রানের জুটি গড়ে ফেলেন তিনি।

কিন্তু শাহিন শাহ আফ্রিদির বাইরের দিকে বেরিয়ে যাওয়া বলটিকে এক পা এগিয়ে এসে খেলার চেষ্টা করেন লিটন। কিন্তু বল চলে যায় থার্ডম্যান অঞ্চলে শান মাসুদের হাতে। ৮ বলে ১০ রান করে বিদায় নেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ সেমির স্বপ্ন দেখা টাইগাদের সংগ্রহ ১২৭ রান

লিটন দাস আউট হওয়ার পর উইকেটে থাকা নাজমুল হোসেন শান্ত এবং সৌম্য সরকারের প্রথম কাজ ছিল আর উইকেট না হারানো এবং রানের গতি বাড়ানো। সেই দায়িত্ব বেশ ভালোভাবেই পালন করে যাচ্ছিলেন এই দুই টপ অর্ডার।

পাওয়ার প্লে’র ৬ ওভারে খুব বেশি রান ওঠেনি। তবে, পাওয়ার প্লে শেষ হয়ে গেলে কিছুটা এগ্রেসিভ হওয়ার চেষ্টা করছেন শান্ত এবং সৌম্য। ফলে ১০ ওভারে শেষে স্কোরবোর্ডে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৭০ রান।

কিন্তু এরপরই ধস নামে। ১৭ বলে ২০ রান করে দলীয় ৭৩ রানে সাজঘরে ফেরেন সৌম্য। পরেই বলেই বিতর্কিত এক এলিবিডাব্লুতে শূন্য রানে আউট হন অধিনায়ক সাকিব। তারপর আর কেউই ক্রজে টিকতে পারেনি। মোসাদ্দেক করেন ১১ বলে ৫ রান, সোহান মেরেছে গোল্ডেন ডাক।

শেষ পর্যন্ত আফিফ হোসেনের ২০ বলে ২৪ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২৭ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ।

পাকিস্তানের হয়ে শাহিন আফ্রিদি ২২ রান দিয়ে নিয়েছে ৪ উইকেট। সাদাব খান নিয়েছেন ৩০ রানে ২ উইকেট এবং হ্যারিস রাউফ ও ইফতেখার আহমেদ নিয়েছে ১টি করে উইকেট।

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন ক্রিকেট