আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

সাকিবকে হারিয়ে ওয়ানডে বর্ষসেরা বাবর আজম

আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে ক্রিকেটারের দলে দৌড়ে ছিলেন সাকিব আল হাসান। ৯ ম্যাচে ব্যাট হাতে ৩৯.৫৭ গড়ে করেছেন ২৭৭ রান। বল হাতে ১৭.৫২ গড়ে ১৭ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের বাঁহাতি অলরাউন্ডার কোন অংশেই দৌড়ে পিছিয়ে ছিলেন না।

সাকিবের পাশাপাশি দৌড়ে সতীর্থ ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার ইয়ানেমান ম্যালান আর আয়ারল্যান্ডের পল স্টার্লিংও। কিন্তু সব শেষে আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে ক্রিকেটারের দৌড়ে জিতে যান পাকিস্তানের বাবর আজম। হেরে যায় সাকিব-ম্যালান-স্টার্লিং।

আজ আইসিসি ওয়ানডের বর্ষসেরা ক্রিকেটার হিসেবে বাবরের নাম ঘোষণা করেছে। এবারের আইসিসির বর্ষসেরার পুরস্কারে পাকিস্তানের উপস্থিতি ছিলো সরব। প্রতিটা স্কোয়াডেই দেখা যায় তাদের।

এর আগে গতকাল আইসিসি বর্ষসেরা টি-টোয়েন্টি খেলোয়াড়ের তকমা পান পাকিস্তানের রিজওয়ান।

২০২১ সালটা পাকিস্তানের জন্যে দারুন একটা সময় ছিলো। নানান প্রাপ্তিতে ভরপুর ছিলো পাকিস্তান দল। অধিনায়ক হিসেবে দারুণ দেখানো বাবরের বছরটা ব্যাট হাতেও এক কথায় ছিল দুর্দান্ত। গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তান ছিলো অপ্রতিরোধ্য এক দল। এরই মাঝে ৬ ওয়ানডেতে ৬৭.৫০ গড়ে ৪০৫ রান করেছেন বাবর। হাঁকিয়েছেন দুটি শতকও।

গেলো বছর পাকিস্তান খেলেছে দুটি সিরিজ। একটি দক্ষিণ আফ্রিকায়, অন্যটি ইংল্যান্ডে। দক্ষিণ আফ্রিকায় ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছে পাকিস্তান, দুই ম্যাচেই ম্যাচসেরা ছিলেন বাবর। প্রথম ওয়ানডেতে হাঁকিয়েছেন শতক৷ সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ওয়ানডেতে  করেছেন ৮২ বলে ৯৪ রান।

কিন্তু ইংল্যান্ডের মাটিতে ৩-০ সিরিজে পাকিস্তান হোয়াইট ওয়াশ হলেও একাই লড়াই করে গেছেন বাবর। তিন ম্যাচে করেছেন ১৭৭ রান।

বার্মিংহামে তৃতীয় ও শেষ ম্যাচটি ছিলো পাকিস্তানের জন্যে অশুভ। ৩৩১ রান করেও শেষ রক্ষা হয়না তাদের। সেই ম্যাচেই বাবরের করা ১৫৮ রানের ইনিংস ওয়ানডে তার ক্যারিয়ারেরই সেরা!

সেই ইনিংসের কথাই আলাদা করে, আজ আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে ক্রিকেটারের পুরস্কার পাওয়ার পর বাবর বলেন, ‘আমাকে সেরা ইনিংস বেছে নিতে বললে আমি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যে ১৫৮ রান করেছিলাম সেটির কথা বলব। আমার সর্বোচ্চ ইনিংসও সেটি। আমার কাছে ওই ইনিংসকে আমার ক্যারিয়ারেরই সেরা মনে হয়। সে সময়ে আমি কিছুটা ভুগছিলাম, একটা বড় ইনিংস দরকার ছিল। সেটি পেয়েছি ওই ইনিংসে, যেটি কিনা আমাকে অনেক আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছে।’

আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে খেলোয়াড়ের সম্মান পাওয়ার পর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বাবর বলেন, ‘প্রথমত আমাকে সব সময় সমর্থন আর অনুপ্রেরণা দিয়ে যাওয়ার জন্য ভক্তদের ধন্যবাদ জানাই সবার আগে। এরপর পিসিবি ও আইসিসির কাছে কৃতজ্ঞতা জানাই, বিশেষ করে আমার পাকিস্তান দলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই সব সময় আমার পাশে থাকার জন্য। তাদের ছাড়া এটা কখনোই সম্ভব হতো না, এত দারুণ একটা দল থাকায় খুব গর্ব হয় আমার। আমার সাফল্যের জন্য আমার মা-বাবা যেভাবে প্রার্থনা করে গেছেন, তাঁদের কাছেও আমি কৃতজ্ঞ।’

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট