আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

বিপিএল

মঈন-ঝড়ে কোয়ালিফায়ারে কুমিল্লা, প্লে-অফ কঠিন খুলনার

১৮৯ রানের বিশাল লক্ষ্য খুলনা টাইগার্সের সামনে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারেই ১৬ রান তুলে ফেলে খুলনা। আর তাতে মনে হচ্ছিলো শ্বাসরুদ্ধকর খেলার দেখা মিলবে হয়তো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স এবং খুলনা টাইগার্সের মধ্যকার এই ম্যাচটিতে। কিন্তু শেষমেশ চিত্রটা একটু ভিন্ন দিকে ঘুরিয়ে দেয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। হেসেখেলেই জয় পায় খুলনার বিপক্ষে।

বল করতে এসে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই জোড়া আঘাত হেনে দুই ওপেনারকে সাজঘরে ফিরিয়ে দেন বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। সেই থেকেই পতনের শুরু খুলনা টাইগার্সের। আর ঘুরে দাঁড়াতে দেয়নি কুমিল্লার বোলাররা। ১২৩ রানেই গুটিয়ে যায় মুশফিকের দল। আর কুমিল্লা পায় রেকর্ড সংখ্যক ৬৫ রানের জয়।

বিপিএলের ইতিহাসে এতোদিন সবচেয়ে বেশি ৬৩ রানের ব্যবধানে জয়ের রেকর্ডটি ছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। বিপিএলের এবারের আসরেই ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে এ জয় পেয়েছিল কুমিল্লা।

খুলনার বিপক্ষে এই জয় নিয়ে ৯ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট সহ কুমিল্লা উঠে গেছে টেবিলের শীর্ষে। পাশাপাশি শীর্ষ দুইয়ে থেকে প্লে-অফ খেলাটাও নিশ্চিত করে নেয় ইমরুলের দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। অন্যদিকে হারের পর ৯ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের পাঁচে নেমে গেছে খুলনা। সামনের ম্যাচে আর তাই তাদের জয়ের বিকল্প নেই।

১৮৯ রান তাড়া করতে নেমে খুলনার পক্ষে ২৩ বলে সর্বোচ্চ ২৬ রান করেন থিসারা পেরারা। পাশাপাশি সৌম্য সরকার ২৫ বলে ২২ রান, ইয়াসির আলি ৯ বলে ১৮, এবং আন্দ্রে ফ্লেচার করেন ৭ বলে ১৬ রান।

কুমিল্লার হয়ে আবু হায়দার রনি সর্বোচ্চ ৩ উইকেট, নাহিদুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান এবং মইন পেয়েছেন ২ টি করে উইকেট।

এর আগে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন খুলনার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। প্রতিপক্ষের আমন্ত্রণে ব্যাট করতে নেমে লিটন দাস, মঈন আলী আর ফাফ ডু প্লেসির ব্যাটিংয়ে কুমিল্লা পায় ১৮৮ রানের বড় সংগ্রহ।

ওপেনিংয়ে ব্যাট করতে নেমে লিটন এক দুরন্ত সূচনা এনে দেন তার দলকে। ৪ চার আর ৩ ছয়ের মারে ১৭ বলে ৪১ রান এনে দিয়ে ফেরেন তিনি। লিটনের মত এত বিধ্বংসী না হলেও ৩৬ বলে ৩৮ রানের ইনিংস খেলে দলকে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ায় সাহায্য করেন ফাফ ডু প্লেসি। এরপর দলে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবস্থান রাখেন মঈন আলি। ব্যাট করতে নেমেই প্রতিপক্ষ শিবিরে ঝড় তোলেন মইন আলি। ৩৫ বলে ২১৪.২৯ স্ট্রাইকরেট নিয়ে ৯ টি ছয় আর ১ টি চারের মারে করেন ৭৫ রান। আর তাতেই কুমিল্লার রান গিয়ে দাঁড়ায় বিশাল অবস্থানে।

লিটন, ফাফ ডু প্লেসি আর মঈন আলির ব্যাটিং ঝড়ে ইনিংস শেষে কুমিল্লার সংগ্রহ দাঁড়ায় ৬ উইকেটে ১৮৮।

খুলনার হয়ে ব্যাটে আলো ছড়ানো থিসারা পেরারা বোলিংয়েও নিয়ে নেন সর্বোচ্চ ২ টি উইকেট। এছাড়া মেহেদী হাসান, সৌম্য সরকার, নাবিল সামাদ এবং খালেদ আহমেদ পান ১ টি করে উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

কুমিল্লা: ২০ ওভারে ১৮৮/৬
(মঈন ৭৫; পেরেরা ২/২৮)

খুলনা: ১৯.৩ ওভারে ১২৩/১০
(পেরেরা ২৬; রনি ৩/১৯)

ফল: কুমিল্লা ৬৫ রানে জয়ী
ম্যাচসেরা: মইন (কুমিল্লা)

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন বিপিএল