আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

ক্রিকেট

বোপারার বল টেম্পারিংয়ে সিলেটকে ৫ রান জরিমানা

এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের আসর যেনো বিতর্কের মহামেলা। একের পর এক বিতর্ক তৈরি করছেন বিপিএলে খেলা এবারের আসরের খেলোয়াড়রা। আর এবার তো সোজা বল টেম্পারিংয়ের মতো আলোচিত বিতর্ক। বিপিএলের সিলেট পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচেই বল টেম্পারিংয়ের প্রশ্নবিদ্ধ কর্মকাণ্ডে জড়িয়েছেন রবি বোপারা। 

সোমবার বিপিএলের সিলেট পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে সিলেট সানরাইজার্সের অধিনায়কত্ব নিয়ে মাঠে নামেন ইংল্যান্ডের অলরাউন্ডার রবি বোপারা। আর প্রথমবারের মত সিলেটের অধিনায়কত্ব পেয়েই এমন বিতর্কিত কান্ড করে বসলেন ইংলিশ এই অলরাউন্ডার।

দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে আজ খুলনা টাইটানসের মুখোমুখি হয়েছে স্বাগতিক সিলেট দল। টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে ইনিংসের নবম ওভারে প্রথমবারের মতো  বল করতে আসেন বোপারা।

ওভারের প্রথম তিন বলে ৪ রান দিয়ে চতুর্থ বলে ঘটান এমন ন্যাক্কারজনক একটি ঘটনা। বলের চামড়ার উপর হাতের আঙ্গুলের সাহায্যে ঘষতে থাকেন তিনি। উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে না করলে এমন কাজ করার কথা না তার। তবে বিষয়টি বাকি অনেকের চোখ এড়িয়ে গেলেও এড়ায় না খুলনার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম এবং অনফিল্ড আম্পায়ার মাহফুজুর রহমান ও প্রগিথ রামবুকভেলার৷ ঘটনাটি চোখে পড়ার সাথে সাথেই তাৎক্ষণিক এর ব্যাখ্যা চাওয়া হয় সিলেট অধিনায়কের কাছে।

কিন্তু উত্তরে সন্তুষ্টিজনক ব্যাখ্যা দিতে পারে না বোপারা। আম্পায়ারদের দেখেই বোঝা যাচ্ছিলো, এমন অপ্রত্যাশিত ঘটনায় খুব খুশি হতে পারেন নি তারা। আর পূর্ণ ব্যাখ্যা না পাওয়ায় বিষয়টি চলে যায় চতুর্থ আম্পায়ার পর্যন্ত। চতুর্থ আম্পায়ারকে ডেকে বল পরিবর্তন করে দেওয়া হয় বোপারার হাতে। ওভারের বাকি তিন বলে একটি ওয়াইড সহ ২ রান দেন বোপারা।

এরপর তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে বলের আকৃতি পরিবর্তনের চেষ্টায় সিলেটকে ৫ রান পেনাল্টি করে তা যোগ করে দেওয়া হয় খুলনার খাতায়। ৯ ওভার শেষে খুলনার দলীয় রান ছিলো ৬২। পেনাল্টি রান যোগ হওয়ায় ৬৭ রান নিয়ে দশম ওভার খেলা শুরু করে খুলনা।

টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে সৌম্য সরকারের ৬২ বলে ৮২ এবং মুশফিকুর রহিমের ৩৮ বলে ৬২ রানে ভর করে খুলনা ইনিংস শেষে সংগ্রহ করে ৩ উইকেটে ১৮২ রান। উল্লেখযোগ্য ইয়াসির আলি করেন ১৮ বলে ২৩ রান।

জবাবে ১৮৩ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেটে ১৬৭ রানেই গুটিয়ে যায় সিলেট। এনামুল হক সর্বোচ্চ ৩৩ বলে ৪৭, মোসাদ্দেক হোসাইন ২২ বলে ৩৯ এবং কলিন ইনগ্রাম করেন ২৮ বলে ৩৭ রান। খুলনার হয়ে পেরারা এবং সৌম্য সরকার পান ২ টি করে উইকেট।

বল টেম্পারিংয়ের মত অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার মুখোমুখি হয়েও সিলেট কে ১৫ রানে হারিয়ে জয় তুলে নেয় খুলনা।

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন ক্রিকেট