আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

বিশ্বকাপে দ্বিগুণ অর্থ পুরস্কার পাচ্ছেন মেয়েরা

খেলায় মেয়েদের অংশগ্রহণ নিয়ে চিন্তার কমতি নেই আইসিসির। শুধু আইসিসি কেনো, বিশ্বের প্রতিটি স্পোর্টস ইভেন্টেই যেখানে মেয়েদের খেলার সুযোগ রয়েছে সেখানে মেয়েদের উৎসাহ প্রদানের জন্যে সচেতন থাকেন আয়োজকরা। আর এবার আইসিসি এগিয়ে এলো আরো এক ধাপ। আইসিসির চেষ্টা যেনো ছেলেদেরকেও ছাড়িয়ে যায় মেয়েরা। আর তার বড় একটা কারন আইসিসি এবং স্পন্সরদের বিনিয়োগের আগ্রহ।

আর তার একটা ছাপ দেখা যাবে এবারের মেয়েদের আসন্ন ওয়ানডে বিশ্বকাপে। বিশ্বকাপে আগের চেয়েও দ্বিগুণ আর্থিক পুরষ্কার পাবেন মেয়েরা। আগামী মার্চে নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া নারী ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১৩ তম আসরে আর্থিক পুরষ্কার বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে আইসিসি।

১৩ তম নারী ওয়ানডে বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন দল পাবে ১৩ লাখ ২০ হাজার মার্কিন ডলার। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১১ কোটি ৩৪ লাখ ৯২ হাজার টাকা। যা সর্বশেষ ২০১৭ বিশ্বকাপের আর্থিক পুরষ্কারের দ্বিগুণ। ২০১৭ সালে লর্ডসে ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড দল পেয়েছিলো ৬ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার। যার বাংলাদেশি মুদ্রামান প্রায় ৫ কোটি ৬৭ লাখ ৪৬ হাজার টাকা।

এছাড়াও এবারের রানার্স আপ দল পাবে ৬ লাখ মার্কিন ডলার যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৫ কোটি ১৫ লাখ ৮৭ হাজার টাকা প্রায়। যে পুরস্কারটা গত আসরের চেয়েও ২ লাখ ৭০ হাজার ডলার বেশি।

শুধুই যে চ্যাম্পিয়ন আর রানার্স আপ দলের পুরস্কারের পরিমাণই বেড়েছে এমন নয়। এবার মোট অর্থ পুরষ্কার বেড়েছে প্রায় ৭৫ শতাংশ। আগামী ৪ মার্চ থেকে শুরু হতে যাওয়া নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপে মোট থাকছে প্রায় ৩০ কোটি ৯ লাখ ২৭ হাজার টাকার পুরস্কার।

এবারের সেমিফাইনালে হেরে যাওয়া দুই দলের জন্য থাকছে ৩ লাখ ডলার করে। আর প্রথম রাউন্ডে বাদ পড়া চার দল পাবে ৭০ হাজার ডলার করে। প্রথম রাউন্ডে প্রতিটি জয়ের জন্য দলগুলো পাবে ২৫ হাজার ডলার করে।

২০১৩ সালে অনুষ্ঠিত হওয়া মেয়েদের ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১১ তম আসরে সবমিলিয়ে পুরস্কারের পরিমাণ ছিল মাত্র ২ লাখ ডলার। যা ২০১৭ সালে দশগুণ বেড়ে গিয়ে হয় ২০ লাখ ডলার। আর এবার তো তা আকাশচুম্বী। আসন্ন ২০২২ সালের আসরে দেওয়া হবে সবমিলিয়ে ৩৫ লাখ ডলার। যা গত আসরের চেয়ে ৭৫ শতাংশ বেশি।

বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের জন্যেও রয়েছে সুসংবাদ। প্রথমবারের মত নারী বিশ্বকাপ খেলবে বাংলাদেশের মেয়েরা। আর বিশ্বকাপ খেলার জন্যেই বর্তমানে নিউজিল্যান্ডে অবস্থান করছে মেয়েরা।

তবে প্রথম বিশ্বকাপ খেলেই যে বাংলার মেয়েরা ফাইনাল কিংবা সেমিফাইনাল খেলে আসবে, এমন আশা করাটা বাড়াবাড়ি। সে কথা আগেই বলে দিয়েছেন বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট দলের অধিনায়ক নিগার সুলতানা। বলা যেতে পারে এবারের বিশ্বকাপ নারীদের জন্যে অভিজ্ঞতার একটা বড় সুযোগ। তবে কোন ম্যাচ না জিতে ঘরে ফিরলেও বাংলাদেশের মেয়েদের দল পাবে ১৫ লাখেরও বেশি টাকা।

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট