আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

ক্রিকেট

বিপিএলে মাঠে ধূমপান করায় শাস্তির মুখে শাহজাদ

আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে যেমন বিশ্ববাসীর নজর কেড়েছেন, তেমনি নানান বিতর্কে জড়িয়েও অনেকবারই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়েছেন মোহাম্মদ শাহজাদ। এবার সে ঝুড়িতে যুক্ত হলো নতুন আরেকটি বিতর্ক। মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে বৃষ্টির কারনে পন্ড হয়ে যাওয়া ম্যাচের বিরতিতে মাঠে দাঁড়িয়েই প্রকাশ্যে ধূমপান করতে দেখা যায় তাকে।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসরে মিনিস্টার ঢাকার হয়ে খেলছেন আফগান এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটার।

শুক্রবার ঢাকায় বৃষ্টির কারনে পন্ড হয় সূচীতে থাকা বিপিএলের দুটো ম্যাচই। সন্ধ্যার ম্যাচে মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স এবং মিনিস্টার ঢাকার। কিন্তু প্রথম ম্যাচের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও বাঁধ সাধে মাঘের এই বৃষ্টি।

আকাশে যখন মেঘের ঘনঘটা, ঢাকার মাঠে তখন বৃষ্টির লুকোচুরি খেলা। দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পর বৃষ্টির এই আসা যাওয়ার খেলায় খেলোয়াড়রা কেউ কেউ বের হন গা গরম করতে। কেউ বা আবার ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে মেতে উঠেন আড্ডায়। অফিশিয়ালরা তখন ব্যস্ত বল মাঠে গড়ানো যায় কিনা, সে আলোচনায়। ঠিক তখনই মাঠে থাকা শাহজাদকে পকেট থেকে ই-সিগারেট বের করে ধূমপান করতে দেখা যায়।

তৎক্ষনাৎ ঢাকার কোচ মিজানুর রহমান বাবুল ও শাহজাদের ওপেনিং সঙ্গী তামিম ইকবাল তাকে বুঝিয়ে পাঠিয়ে দেন ড্রেসিং রুমে। কিন্তু মানুষের চোখ এড়ায় কেমন করে! মুহুর্তের মধ্যেই শাহজাদের ধোঁয়া উড়ানো ছবি ভাইরাল হয়ে যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে। দৃষ্টি এড়ায় না বিসিবিরও।

মাঠের ভেতরে ধূমপান করা স্পষ্টতই ক্রিকেটের আচরণবিধির লঙ্ঘন। আর সে কারনেই ক্রিকেটের কোড অফ কনডাক্ট ভঙ্গ করায় বিসিবি শাহজাদকে তিরস্কারের পাশাপাশি দিয়েছে শাস্তি। তার নামের পাশে যুক্ত করা হয়েছে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট। একই সাথে তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে বিসিবি থেকে।

বিসিবি জানায়, শাহজাদের এমন কার্যক্রম বোর্ডের কোড অব কন্ডাক্টের ২.২০ নম্বর ধারা ভঙ্গ করে। কিন্তু শাহজাদ নিজের দোষ স্বীকার করে নেওয়ায় কোনো আনুষ্ঠানিক শুনানির প্রয়োজন পড়েনি।

নতুন নতুন বিতর্ক তৈরি করা যেনো শাহজাদের অভ্যাস। এর আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে অসন্তোষ জানিয়ে তিরস্কার পেয়েছিলেন তিনি। ২০১৬ বিপিএলে সাব্বির রহমানের সঙ্গে শারীরিক সংঘর্ষের ঘটনায় দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি জরিমানা হয় তার ম্যাচ ফির ৩০ শতাংশ।

২০১৭ সালে ডোপ পরীক্ষায় ব্যর্থ হয়ে ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন এক বছরের জন্য। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে ২০১৮ সালে আউট হওয়ার পর ব্যাট দিয়ে মাঠে আঘাত করায় নিষিদ্ধ হন দুই ম্যাচ, সঙ্গে জরিমানা হয় ম্যাচ ফির ১৫ শতাংশ। আফগান বোর্ডের আচরণবিধি ভঙ্গ করায় ২০১৯ সালে আবার নিষিদ্ধ হন এক বছরের জন্য। আর এবার ধূমপানের মত নতুন এই বিতর্ক।

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন ক্রিকেট