আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

বিপিএল

বল টেম্পারিং নয়, নাকল বল করতে চেয়েছিলেন বোপারা

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কাছে কাল হেরে সংবাদমাধ্যমের সামনে আসেন গত কিছুদিন আগে বিতর্ক তৈরি করা রবি বোপারা। নিজের কৃত কর্মটির সম্পর্কে অবগত ছিলেন তিনি। আর তাই জানতেন, সংবাদমাধ্যমের সামনে এলেই জবাব দিতে হবে বল টেম্পারিংয়ের বিষয়ে। আর সেজন্য প্রস্তুতিরও কম রাখেন নি ইংলিশ এই খেলোয়াড়। সঙ্গে করে একটি বল নিয়ে আসেন সংবাদমাধ্যমের সামনে।

খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে বল করতে এসে বল বিকৃতির অভিযোগে বোপারাকে জরিমানা করা হয়েছিলো তার ম্যাচ ফি-র ৭৫%। সেই সাথে তার নামের পাশে তিনটি ডিমেরিট পয়েন্ট সহ খুলনাকে দেওয়া হয়েছে ৫ রান অতিরিক্ত।

সিলেটের অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রথমবারের মত বল করতে এসে বলের চামড়ায় আঙুল দিয়ে ঘষতে দেখা যায় তাকে। আর তাতে সন্দেহ জাগে দায়িত্বরত আম্পায়ার এবং খুলনা অধিনায়কের মনে। মাঠের দুই আম্পায়ার বাংলাদেশের মাহফুজুর রহমান ও শ্রীলঙ্কার প্রগিথ রাম্বুকওয়েলা বল হাতে নিয়ে কিছুক্ষণ পর্যবেক্ষণ করে ডেকে পাঠান রিজার্ভ আম্পায়ারকে।

এমসিসির আইনের ৪১.৩ ধারা অনুযায়ী, আম্পায়ার যদি মনে করেন খেলোয়াড় বলের কন্ডিশন পরিবর্তন করেছেন, তবে সেই ম্যাচের বল পরিবর্তনের ক্ষমতা রাখেন আম্পায়াররা। মাঠের দুই আম্পায়ারের অভিযোগের ভিত্তিতে তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞাও দেন ম্যাচ রেফারি দেবব্রত পাল, তবে আপিল করায় সে শাস্তি কমিয়ে শুধু ম্যাচ ফি-র জরিমানা করা হয় বোপারাকে।

বিষয়টি পরিষ্কার করতে বোপারা সংবাদমাধ্যম কে বলেন, ‘এখানে একটা ভুল হয়েছে। আমি আসলে নাকল বল করতে যাচ্ছিলাম।’

এরপর বল হাতে সকলকে ‘নাকল’ বলের গ্রিপ দেখিয়ে বলেন, ‘নাকল বল করার জন্য গ্রিপ কিন্তু মোটেও সহজ কিছু নয়। এই বলটি করার জন্য আপনাকে গ্রিপটা ঠিকমতো ধরতে হবে। ভেজা বলে নাকলের জন্য গ্রিপ করা আরও কঠিন। বিভিন্নভাবে গ্রিপ করার জায়গা বেছে নিতে হবে আপনাকে, না–হলে নাকল করা যাবে না, নো বল হবে কিংবা বল মাথার ওপর দিয়ে চলে যাবে। আসলে এখানে একটা ভুল হয়েছে। ব্যাপারটা খুবই হতাশাজনক। কী আর করা, এটাই জীবন।’

তবে বোপারা তার অবস্থান পরিবর্তনের জন্য যাই বলুক, তাতে আম্পায়াররা যে সন্তুষ্ট নন, তা আম্পায়ারদের সিদ্ধান্তেই বোঝা যায়। অপরাধের দায়ে শাস্তি, সেটাই প্রকাশ করছে। তবে অপরাধ হিসেবে বড় শাস্তির হাত থেকে বেঁচে গেছেন বোপারা। বল টেম্পারিং আইসিসির আচরণবিধির লেভেল-৩ পর্যায়ের অপরাধ। যার সর্বোচ্চ শাস্তি ৬ টেস্ট কিংবা ১২ ওয়ানডে ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা। সে হিসেবে আপিল করে শুধুমাত্র জরিমানা দিয়েই পাড় পেয়ে যাচ্ছেন তিনি।

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন বিপিএল