আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

পদত্যাগের মাধ্যমেই অস্ট্রেলিয়ায় শেষ ল্যাঙ্গার অধ্যায়

নানান আলোচনা-সমালোচনা আর বিতর্কের পর অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ডে পরিসমাপ্তি ঘটে জাস্টিন ল্যাঙ্গার অধ্যায়ের৷ অভিমান থেকেই অস্ট্রেলিয়ার প্রধান কোচের পদ থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন সাবেক এই ওপেনার। তার সময়কালেই প্রথমবারের মত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পেয়েছিলো অস্ট্রেলিয়া।

ল্যাঙ্গারকে নিয়ে অনেকদিন ধরেই অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট অঙ্গনে চলছিলো নানান টালবাহানা। তার পদত্যাগের মাধ্যমে সেই নাটকের অবসান ঘটলো অবশেষে।

ল্যাঙ্গারের ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি ‘ডিএসইজি’ শনিবার সকালে এক বিবৃতিতে তার এই সিদ্ধান্তের কথা জানায়।  বিবৃতিতে বলা হয়, “ডিএসইজি নিশ্চিত করছে যে, আমাদের মক্কেল জাস্টিন ল্যাঙ্গার অস্ট্রেলিয়ার ছেলেদের ক্রিকেট দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব থেকে আজকে পদত্যাগ করেছে। গত রাতে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে এক সভার পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সিদ্ধান্তটি কার্যকর এই মুহূর্ত থেকেই।”

ল্যাঙ্গারের চুক্তির মেয়াদ ছিলো আরো ৫ মাস, সে মেয়াদ বাড়ানোর যথেষ্ট সুযোগ ছিলো বোর্ডের হাতে। বিগত কয়েকদিন ধরেই মেয়াদ বাড়ানো নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সাথে ল্যাঙ্গারের আলোচনা চলছিলো। শুক্রবার বোর্ডের হর্তাকর্তাদের নিয়ে আলোচনায় বসে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। সেই আলোচনায় অন্যান্য অনেক বিষয়ের সাথে মূল আলোচনা ছিলো ল্যাঙ্গারের চুক্তি নিয়ে।

শুক্রবার আলোচনা শেষে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী জানিয়েছিলেন ল্যাঙ্গারের সঙ্গে আলোচনা চলছে। কিন্তু সভার পরদিনই পদত্যাগ করে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট দলকে বিদায় জানান ল্যাঙ্গার।

২০১৮ সালে ভীষণ সংকটের মুহুর্তে অস্ট্রেলিয়া দলের হাল ধরেন ল্যাঙ্গার। কেপ টাউনে বল টেম্পারিংয়ের মতো ঘটনায় টালমাটাল দলকে সঠিক পথে ভেড়াতে ল্যাঙ্গারের অবদান ছিলো অনস্বীকার্য। তার সময়কালে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট পারফরম্যান্সে কিছু উঠানামা দৃশ্যমান হলে তা নিয়ে তৈরি হয় সমালোচনা। কিন্তু মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগ থাকা সত্ত্বেও না বাড়ানোয় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার দিকে আঙ্গুল তুলেছেন অনেকে।

মূলত বিগত সময়ে অস্ট্রেলিয়ার সাফল্যের কারনেই অ্যাশেজ শেষেই চুক্তি বাড়ানোর ইচ্ছা পোষণ করেছিলেন ল্যাঙ্গার। ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৪-০ তে অ্যাশেজ জয় ও প্রথমবারের মত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতায় তার এই চাওয়াটা অর্থহীনও ছিলোনা। কিন্তু পরিশেষে হীতে বিপরীত ঘটে ঘটনাপ্রবাহ।

তার এই পদত্যাগ বিষয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এক বিবৃতিতে জানায়, “জাস্টিনের বর্তমান চুক্তির সঙ্গে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। দুঃখজনকভাবে তিনি সেই প্রস্তাব গ্রহণ করেননি।”

সমস্ত ঘটনাপ্রবাহ বিচার বিশ্লেষণ করে বুঝাই যাচ্ছে, দায়িত্বে থেকে যাওয়ার ইচ্ছা থাকলেও দলে উদ্ভুত পরিস্থিতির কারনেই পদত্যাগের পথে হাটতে হয়েছে ল্যাঙ্গারকে।

তবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া যে শুধু সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স বিবেচনাতেই তার কোচিং ধরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, এমন নয়। বোর্ডের মত অনুযায়ী তার অধীনে নানা সমস্যার কথা বিবেচনাতেও সকলের সামনে উঠে আসে বিষয়গুলো।

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট