আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

ক্রিকেট

আফিফ-মিরাজের বিশ্বরেকর্ডে বাংলাদেশের অবিস্মরণীয় জয়

আফিফ হোসাইন এবং মেহেদী হাসান মিরাজের বিশ্বরেকর্ড করা পার্টনারশিপে আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ৪ উইকেটে অবিস্মরণীয় জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। দুর্দান্ত এই জয়ে বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তান সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেলো বাংলাদেশ।

চট্টগ্রামের সাগরিকায় প্রথমে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে আফগানিস্তানের দলীয় সংগ্রহ গিয়ে থামে ২১৫ রানে। ৪৯.১ ওভারে গুটিয়ে যাওয়া আফগানিস্তানের হয়ে দলের হাল ধরেন নাজিবউল্লাহ জাদরান। উইকেটের নিয়মিত যাতায়াতে ৮৪ বল খেলে ৪ টি চার ও ২ টি ছক্কা হাঁকিয়ে করেন ৬৭ রান। এছাড়া আফগানিস্তান দলের লড়াই করার মত পুঁজি সংগ্রহে সাহায্য করেন রহমত শাহ ৩৪, অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ শহিদি ২৮ ও মোহাম্মদ নবী ২০ রানে অবদান রাখেন দলে।

বাংলাদেশের হয়ে বোলিং নৈপুণ্য প্রদর্শন করে মুস্তাফিজুর রহমান সর্বোচ্চ ৩ টি উইকেট, এবং সাকিব আল হাসান, তাসকিন আহমেদ এবং শরিফুল ইসলাম নেন ২ টি করে উইকেট।

আফগানিস্তানের দেওয়া লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে তামিম ইকবাল ভালো শুরুর ইঙ্গিত দিলেও দলীয় ১৩ রানে লিটন কুমার দাসের বিদায়ে ছন্দপতন শুরু হয় বাংলাদেশ দলে। ব্যাটিং বিপর্যয়ে নিয়মিত উইকেটের গড়পতনে বাংলাদেশের অবস্থা বেগতিক করে তোলেন আফগান বোলাররা। দলীয় রান ৫০ পেরোনোর আগেই একে একে সাজঘরে ফেরেন লিটন কুমার দাস, তামীম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, ইয়াসির আলী, সাকিব আল হাসান এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

বাঁহাতি পেসার ফজলহক ফারুকি একাই শিকার করে নেন বাংলাদেশের তামিম, লিটন, মুশফিক ও ইয়াসিরকে। আফগানিস্তানের বোলিং এটাকে যখন টালমাটাল বাংলাদেশ, তখন সকলের কাছেই মনে হচ্ছিলো বাংলাদেশের হারটা সময়ের ব্যবধান মাত্র। কারন ইতিমধ্যেই যাদের কাছে আশা ভরসা ছিলো, অভিজ্ঞরা সব একে একে বিদায় নিয়েছেন মাঠ থেকে।

তবে অবিশ্বাস্যভাবে সে ধারণা পালটে দিলেন দুই তরুণ খেলোয়ার আফিফ হোসাইন এবং মেহেদী হাসান মিরাজ। সপ্তম উইকেটে তারা দুজনে গড়েন বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ পার্টনারশিপের রেকর্ড। আর তা ৫০ রানে ৬ উইকেটের পতনের পর ওয়ানডে উইকেটে ক্রিকেট ইতিহাসের এটাই সর্বোচ্চ রেকর্ড।

রান তাড়া করতে নেমে সপ্তম উইকেটে আফিফ এবং মিরাজের এই পার্টনারশিপ বিশ্বের ইতিহাসে সব থেকে সেরা ইনিংস। সপ্তম ব্যাটার হিসেবে খেলতে নেমে আফিফ এবং অষ্টম উইকেটে খেলতে নেমে মিরাজ খেলেন বাংলাদেশের সেরা ইনিংস।

তরুন এই দুই খেলোয়াড়ের মাথা ঠান্ডা রেখে পেশাদারি খেলায় বাংলাদেশ পায় অবিশ্বাস্য জয়। রশিদ-নবী-মুজিবদের মত বোলারদের খেলে ১৭০ রানের দুর্দান্ত জুটি গড়েন এই দুজন। আফিফ হোসাইনের ১১৫ বলে ৯৩ রানের ইনিংসে মারেন ১১ টি চার এবং ১ টি ছয়। আর মিরাজ তার ইনিংস সাজান ৯ টি চারে ১২০ বলে ৮১ রান করে।

আফগানিস্তানের হয়ে ফজলহক ফারুকি সর্বোচ্চ চারটি এবং রশিদ খান ও মুজিব উর রহমান একটি করে উইকেট শিকার করেন।

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন ক্রিকেট