আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

অনূর্ধ্ব-১৯ এর ব্যর্থতা, চ্যাম্পিয়নদের কেন এই ভরাডুবি !

                                                                         ছবি : ইন্টারনেট

|| ক্রিকডট ডেস্ক ||  শিরোপা ধরে রাখার স্বপ্ন নিয়েই এবারের অনূর্ধ্ব-১৯ বাংলাদেশ দল খেলতে গিয়েছিলো ক্যারিবীয় দীপপুঞ্জে। কিন্তু শিরোপা হতে দুই ধাপ আগেই স্বপ্নভঙ্গ হলো রকিবুলদের। কোয়ার্টার ফাইনালে গত রাতে ভারতের কাছে হেরে বিশ্বকাপের স্বপ্ন বিনাশ হয় গতবারের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের। গত বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারতকে হারিয়েই বিজয় উল্লাস করেছিলো যুব দল।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে থেকেই ভারতকে বড় বাধা হিসেবে দেখছিলেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক রকিবুল। যদিও ম্যাচ শুরুর আগে শুনিয়েছিলেন আশার বানী। বলেছিলেন ভয়ডরহীন খেলার মাধ্যমে উৎরে যেতে পারেন এই ধাপ। কিন্তু বাধাটা টপকানো যায়নি।

করোনার কারনে নিজেদের সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিতে পারেনি বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ জাতীয় দল। সর্বশেষ বিশ্বকাপে ৩০ টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলার পর জাতীয় দল গিয়েছিলো দক্ষিণ আফ্রিকায়। আর এবার মাত্র ১২ টি ম্যাচ খেলার সুযোগ হয়েছে তাদের। আর তাই ছিলো প্রস্তুতিতেও ছিলো ঘাটতি।

আরও পড়ুন ঃ ব্যক্তিগত আক্রোশেই শাস্ত্রীকে কোচ থেকে বাদ দেন গাঙ্গুলি ।

এবারের যুব বিশ্বকাপে ব্যাটিংয়ে ভালো রকমের ভুগতে হয়েছে বাংলাদেশকে। টুর্নামেন্টের শুরুটাতেই হোচট খেয়েছিলো বাংলাদেশ। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাত্র ৯৭ রানেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। ৭ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে বাংলাদেশ হেরেছিলো সেই ম্যাচ। পরের দুই ম্যাচে কানাডা আর সংযুক্ত আরব আমিরাতকে উড়িয়ে দেওয়াটা আত্মবিশ্বাসে জ্বালানি দেয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ভাগ্য সহায় হয়না।

ভারতের বিপক্ষে আবারো পড়তে হয় ব্যাটিং বিপর্যয়ে। অ্যান্টিগার নর্থ সাউন্ডের স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস স্টেডিয়ামে শেষ চারের লড়াইয়ে শুরুতেই হোচট খায় বাংলাদেশ। নিয়মিত উইকেটের পতনে আর দাঁড়াতে পারেনি বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের এই ব্যাটিং ব্যর্থতাই ভারতের সাথে তৈরি করে দিয়েছে বিশাল পার্থক্য। বাংলাদেশের দেওয়া ১১২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে ভারতকে হারাতে হয়েছে ৫ উইকেট। বোলাররা তাদের সর্বোচ্চ চেষ্টাটুকু করেছিলেন। আর অল্প কিছু রান হলে হয়তো তারা তা পাড় করেও যেতেন। কিন্তু এই আক্ষেপটা থাকবেই বাংলাদেশের যুবাদের।

তবে আক্ষেপের পাশাপাশি প্রাপ্তিও রয়েছে বাংলাদেশ দলের। ভারতের হারানো ৫ উইকেটের ৪ উইকেটই নিয়েছেন রিপন মন্ডল। টুর্নামেন্টের এখন পর্যন্ত তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি তিনি। ৪ ম্যাচে ৩.৩৩ ইকোনমি রেটে ১২ উইকেট তুলে নিয়েছেন এই পেসার।

আরও পড়ুনঃ চট্টগ্রামের অধিনায়কত্ব হারালেন মিরাজ, প্রধান কোচেও পরিবর্তন ।

মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

আরো দেখুন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট